বরমী বাজারের সাথে সব যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার হুমকি

0

নিজস্ব প্রতিবেদক: গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বরমী বাজারে বৃহস্পতিবার আটক হওয়া ব্যাবসায়ীদের আজকের মধ্যে মুক্তি না দেওয়া হলে বাজারের সাথে জেলার সব যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দিয়েছে ব্যবসায়ী নেতারা। শুক্রবার দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী এক সমাবেশ থেকে এমন হুসিয়ারি দেন বক্তারা। দুপুরে দোকানপাট বন্ধ করে বরমী কাওরাইদ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা করেছেন ব্যবসায়ীরা। এসময় বাজারের জনতার মোড়ে অবস্থান নিয়ে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত দোকানপাট বন্ধ রাখার ঘোষনা দেন তারা।

বিক্ষোভে আটকে পড় পন্যবাহী  ট্রাক

বিক্ষোভে আটকে পড় পন্যবাহী ট্রাক

বিক্ষোভ পরবর্তী সমাবেশে বরমী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সামাদ শেখ বলেন, কয়েক মাস যাবত ডিবি ও শ্রীপুর থানা পুলিশ বরমী বাজারের ব্যবসায়ীদের নানাভাবে হয়রানি করছে। ম্যাজিস্ট্রেট ছাড়া সাদা পোশাকে ডিবি পুলিশ বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের দোকানে হানা দিয়ে থাকে। তারা ভ্রাম্যমান আদালতের ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজি করছে।

ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল হক বাদল সরকার বলেন, বৃহষ্পতিবার উপজেলা অাইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় স্থানীয় সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট রহমত আলী পুলিশের বিরুদ্ধে মানুষ হয়রানির নানা প্রশ্ন তুলে ধরেন। এসময় শ্রীপুর থানা পুলিশের প্রতিনিধি এস আই হেলাল উদ্দিন তা এড়িয়ে যান।
ডিবি পুলিশ ও শ্রীপুর থানা পুলিশ দ্বারা ব্যবসায়ী
নির্যাতনের প্রতিবাদ এবং নিরীহ ব্যবসায়ীর মুক্তির
দাবীতে মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বরমী বাজার বণিক সমিতির সভাপতি অহিদুল হক ভূঁইয়ার
সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন,ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল হক বাদল সরকার, আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুস সামাদ শেখ বাজার বনিক সমিতির সম্পাদক আলমগীর হোসেন মোড়লসহ স্থানীয় রাজনৈতিক, সামাজিক ও ব্যাবসায়ী নেতৃবৃন্দ।

ব্যাবসায়ীদের বিক্ষোভ

ব্যাবসায়ীদের বিক্ষোভ

জানতে চাইলে গাজীপুর ডিবি পুলিশের এক কর্মকর্তা গাজীপুর টাইমস কে জানান,শ্রীপুর থানার একজন এস আই এর নেতৃত্বে ডিবি পুলিশের চার সদস্যের দল বরমী বাজারের কয়েকটি দোকান থেকে পলিথিন জব্দ করে। ফলে ব্যবসায়ীদের উষ্কানিতে ডিবি পুলিশের
কনস্টেবল ইয়াসিন (৩৬) ইটপাটকেলে আহত হন। এলাকাবাসীর অভিযোগগুলোর সাথে ডিবি পুলিশ জড়িত নয় বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, বৃহষ্পতিবার রাতে সাদা পোশাকে চারজন ব্যক্তি আমীর ট্রেডার্সে অভিযান চালায়।
তারা ওই দোকানে পলিথিন জব্দ করে ভ্রাম্যমান
আদালতের মাধ্যমে দন্ড দেয়ার কথা বলে। এসময় বাজারের ব্যবসায়ীরা ম্যাজিস্ট্রেট বিহীন ভ্রাম্যমান আদালত নিয়ে প্রশ্ন তুলেন। এ নিয়ে ডিবি পুলিশের সাথে তাদের বাগ্বিতন্ডা হয়। এরই ফাঁকে ইটপাটকেলের আঘাতে ইয়াসিন (৩৬) নামে এক ডিবি পুলিশের কনস্টেবল আহত হন। পরে ব্যবসায়ীরা পুলিশদের বরমী বাজার বণিক সমিতিতে অবরুদ্ধ করে রাখেন। পরবর্তীতে পুলিশ জনবল বাড়িয়ে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার ও তিন
ব্যবসায়ীকে আটক করে নিয়ে যায়। ব্যবসায়ীরা
দাবী করেন কোনো ব্যবসায়ী পুলিশের ওপর
হামলা করেনি। অন্য কেউ এটা করে থাকতে পারেন বলে জানান ব্যাবসায়ী নেতারা।

বিক্ষোভে আটকে পড় পন্যবাহী  ট্রাক

বিক্ষোভে আটকে পড় পন্যবাহী ট্রাক

পরে ওই দিন শাহাদাত হোসেন শামীম, শরীফ মোড়ল, বাবুল আকন্দ ও ভাপন দাস নামের ৪জনকে আটিক করে নিয়ে যায় পুলিশ। এরপর থেকে বাজারের সকল দোকানপাট বন্ধ করে গ্রেপ্তার আতংকে বাজার ত্যাগ করে ব্যবসায়ীরা।

জিটি/২৪/০৯/১৬/০০৭

Share.

Comments are closed.