রাজনীতিতে ফিরছেন না সোহেল তাজ

0

উম্মুল ওয়ারা সুইটি: এবারের সম্মেলনে দলে ফিরছেন না সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও তাজ উদ্দিন আহমেদের ছেলে সোহেল তাজ। তবে, সম্মেলনকে ঘিরে দলের একটি পক্ষ সোহেল তাজের ফিরে আসার বিষয়ে বেশ সরব ভূমিকা রাখেন তার সমর্থকরা। তারা প্রচার প্রচারণাও করেন। দলীয় সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সোহেল তাজকে স্নেহ করেন।

সোহেল তাজ

সোহেল তাজ

কিন্তু সোহেল তাজ নিজেই এ মুহূর্ত রাজনীতিতে আসতে চাচ্ছেন না। এমনকি তিনি সম্মেলন উপলক্ষে বাংলাদেশেও আসবেন না বলে জানা গেছে। আওয়ামী লীগের একজন নেতা বলেন, জোট সরকারের সময় সরকারবিরোধী সব আন্দোলনে রাজপথে সক্রিয় ছিলেন সোহেল তাজ। এরপর দল ক্ষমতায় আসার পর তার মূল্যায়নও করেন শেখ হাসিনা। কোনো বিশেষ কারণে সোহেল তাজ পদত্যাগ করলেন সেটা আজও জানি না। কিন্তু সম্মেলনকে ঘিরে তার আসার গুঞ্জন শোনা গেলেও দলীয় কোনো পদে আসার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

আওয়ামী লীগের আরেকজন নেতা বলেছেন, এবারের সম্মেলনের মাধ্যমে বেশ কয়েকজন নতুন নেতৃত্বকে দায়িত্বে নিয়ে আসবে দল। তবে তাদেরই আনা হবে, যারা অতীতে দলীয় রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। কিন্তু যারা অতীতে রাজনীতিতে ছিলেন কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোতে রাজনীতিতে সক্রিয় নন, তাদের দায়িত্বে আসার সম্ভাবনা খুবই কম। কাজেই সে বিবেচনায় সোহেল তাজেরও আসার সম্ভাবনা নেই।

সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে ২০০৮ সালের নির্বাচনে জয়লাভের পর আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান সোহেল তাজ। কিন্তু পাঁচ মাসের মাথায় ২০০৯ সালের ৩১ মে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান তিনি। এরপর আর কোনো যোগোযোগ রাখেননি সরকারের সঙ্গে।

তার এ পদত্যাগ কিংবা দেশছাড়ার প্রসঙ্গে সোহেল তাজ স্পষ্ট করে কিছু বলেননি কখনো। মন্ত্রিত্ব ছাড়ার প্রায় তিন বছর পর ২০১২ সালে সংসদ সদস্য পদ থেকেও ইস্তফা দেন সোহেল তাজ। এরপর কখনোই দলের কোনো কর্মকা-ে যুক্ত হননি।

এমনকি আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও কখনো সাক্ষাৎ করেননি। তবে এ বছরের জানুয়ারিতে সোহেল তাজ ও তার দুই বোন গণভবনে গিয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন।

সোহেল তাজের পদত্যাগের পর ওই আসনে উপনির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তার বোন সিমিন হোসেন রিমি। রিমি বর্তমানে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য। আমাদের অর্থনীতি।

গাজীপুর টাইমস/২১/১০/১৬/০০৭

Share.

Comments are closed.